শিরোনাম:
নবীনগরে শিল্পপতি রিপন মুন্সির স্বপ্নের ফার্মে ঘুরে দাঁড়ালো ৫০০ অসহায় পরিবার নবীনগরে বিএনপির অপপ্রচার ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্পৃতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত। নবীনগরে ব্যারিষ্টার জাকির আহাম্মদ কলেজে জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেবে রাশিয়া বিয়ের পরদিন মেঘনায় ভাসছিল যুবকের মরদেহ প্রেমের টানে এবার জয়পুরহাটে শ্রীলঙ্কান যুবক ইডেনের বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রীরা কৃষিমন্ত্রীর বাসায় এবার গোপনে নয়, আয়োজন করে বিয়ে করবেন শাকিব ৩ স্ত্রী থাকার পরও কিশোরীকে বিয়ের প্রস্তাব, রাজি না হওয়ায় অপহরণ ইভ্যালির সার্ভার খুলছে শিগগিরই, অনলাইনে চালু হবে কেনাবেচা
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৪৮ অপরাহ্ন

সয়লাব রুপালি ইলিশে তাও চড়া দাম

প্রতিনিধির / ১০১ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২
সয়লাব রুপালি ইলিশে তাও চড়া দাম
সয়লাব রুপালি ইলিশে তাও চড়া দাম

পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর বরগুনার মৎস্য বন্দর থেকে সড়ক পথে সাত ঘণ্টায় রুপালি ইলিশ যাচ্ছে রাজধানীতে। এরপর থেকেই স্থানীয় বাজারে ইলিশের দাম বাড়তে শুরু করেছে।বুধবার (১০ আগস্ট) সকালে পৌর মাছ বাজারে দেখা যায়, ক্রেতা-বিক্রেতাদের হাঁকডাকে জমে উঠেছে ইলিশের বেচাকেনা। তবে চাহিদার তুলনায় কম ইলিশ রয়েছে বাজারে।
বিক্রেতারা বলছেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ছোট-বড় বাজারে ইলিশ মাছ যাওয়ায় কারণে স্থানীয় বাজারে সরবরাহ কমে যাওয়ায় ইলিশের দাম বেড়েছে। ইলিশের দাম মণ প্রতি (৪০ কেজি) ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা বেড়েছে।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম একটি বড় উৎস এই বরগুনার পাথরঘাটা মৎস্য অবতারণ কেন্দ্র। গভীর সমুদ্রে ধরা ইলিশ রয়েছে প্রচুর। পাশাপাশি পায়রা, বিষখালী ও বলেশ্বর ধরা ইলিশের সরবরাহও রয়েছে গত মৌসুমের তুলনায় একটু বেশি। তবে চাহিদা বেশি বিষখালীর ইলিশের। সাইজ অনুযায়ী প্রতি কেজি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৬৫০-১৯০০ টাকা দামে। ভরা মৌসুমে সাগর, নদীতে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। ইলিশের অন্যতম ক্ষেত্র পায়রা ও বিষখালী নদীতেও জেলের জালে উঠে আসছে রুপালি এ মাছ।

স্থানীয় তিনটি নদী থেকে আহরিত ইলিশ বিক্রি হচ্ছে বরগুনা পৌর বাজার, আমতলী, তালতলী, বেতাগী ও পাথরঘাটার মৎস্য আড়তগুলোতে। মৎস্য আড়তে বেড়েছে ইলিশ মাছের সরবরাহ। তবে সরবরাহ থাকলেও দাম বেশ চড়া বলছেন স্থানীয় ক্রেতারা।

বাজারে এসেছেন মোবাইল সার্ভিস সেন্টারের টেকনিশিয়ান মো. রশিদ ফরাজী তিনি বাংলানিউজকে জানান, মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ। বেশির ভাগ মানুষের কাছে ইলিশ এই মুহূর্তে বিলাসিতার পণ্য। গত সপ্তাহের তুলনায় এ সপ্তাহে বাজারের ইলিশের সরবরাহ কম দেখা গেছে। দাম কিছুটা চড়া দেখা গেছে। ‘আমার মতো লোকও দ্বিধাদ্বন্দ্বে আছি। বিক্রেতারা বাংলানিউজকে বলছেন, আমদানি থাকলেও চাহিদা বেশি তাই দামও বেশি। আমদানি আরও বাড়লে দাম কমবে বলে জানান তারা। তবে সাগরের মাছের তুলনায় নদীতে ধরা মাছের দাম বেশি।

এদিকে জানা যায়, ২৫০-৩০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে ৫২০ থেকে ৫৬০ টাকা, ৪০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৬২০ টাকা, ৫০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৬৮০-৮৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে, ৮০০-৯০০ গ্রাম ওজনের ১২৫০ টাকা কেজি, এক কেজি থেকে ১৪০০ গ্রাম ওজনের ১৫০০-১৮০০, দেড় থেকে দুই কেজি ওজনের ইলিশ ২০০০-২৪০০ টাকা।

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ

Recent Comments

No comments to show.