শিরোনাম:
নবীনগরে শিল্পপতি রিপন মুন্সির স্বপ্নের ফার্মে ঘুরে দাঁড়ালো ৫০০ অসহায় পরিবার নবীনগরে বিএনপির অপপ্রচার ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্পৃতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত। নবীনগরে ব্যারিষ্টার জাকির আহাম্মদ কলেজে জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেবে রাশিয়া বিয়ের পরদিন মেঘনায় ভাসছিল যুবকের মরদেহ প্রেমের টানে এবার জয়পুরহাটে শ্রীলঙ্কান যুবক ইডেনের বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রীরা কৃষিমন্ত্রীর বাসায় এবার গোপনে নয়, আয়োজন করে বিয়ে করবেন শাকিব ৩ স্ত্রী থাকার পরও কিশোরীকে বিয়ের প্রস্তাব, রাজি না হওয়ায় অপহরণ ইভ্যালির সার্ভার খুলছে শিগগিরই, অনলাইনে চালু হবে কেনাবেচা
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:২৬ অপরাহ্ন

খুঁটির সঙ্গে বেঁধে দুই শিশুকে নির্যাতন, ৩ পুলিশ প্রত্যাহার

প্রতিনিধির / ১১৭ বার
আপডেট : রবিবার, ২১ আগস্ট, ২০২২
খুঁটির সঙ্গে বেঁধে দুই শিশুকে নির্যাতন, ৩ পুলিশ প্রত্যাহার
খুঁটির সঙ্গে বেঁধে দুই শিশুকে নির্যাতন, ৩ পুলিশ প্রত্যাহার

নগরের খুলশী থানার লালখান বাজার এলাকায় চুরির অভিযোগে ১৩ বছর বয়সী দুই শিশুকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। শুক্রবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে এ ঘটনা ঘটলেও রোববার (২১ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় জড়িত পুলিশের তিন সদস্যকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) শাহাদত হুসেন রাসেল।
পুলিশের অভিযুক্ত তিন সদস্য চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের মনসুরাবাদ লাইনে থাকেন। তারা হলেন- কনস্টেবল মো. মাজহার, মো. মেহেদী ও মো. এহসান।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নগরের বাটালী হিল, লালখান ম্যাজিস্ট্রেট কলোনিসহ আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তার জন্য টহল পুলিশ হিসেবে দায়িত্ব পালন করতেন অভিযুক্ত তিন কনস্টেবল। ঘটনার শিকার দুই শিশু লালখান বাজার মতিঝর্না এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকে। শুক্রবার তাজুল ইসলাম নামের একজনকে কে বা কারা পাথর ছুড়ে মারে। এ ছাড়া ম্যাজিস্ট্রেট কলোনি, মতিঝর্নাসহ আশপাশের এলাকায় প্রায়ই ছোটখাটো চুরির ঘটনা ঘটে। ঘটনার দিন তিন শিশু লালখান বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ব্রিজের নিচে বসে আড্ডা দিচ্ছিল। তখন টহল পুলিশ সদস্যদের কাছে খবর যায়, এই শিশুরা সেখানে প্রায়ই চুরি করে থাকে। পরে পুলিশ সদস্যরা তাদের ধাওয়া দিলে একজন পালিয়ে যায়। সেখান থেকে পুলিশ সদস্যরা দুজনকে ধরে পাশের জিলাপির পাহাড়ে নিয়ে যায়। পরে একটি লোহার খুঁটির সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। সেখানে একজনের মাথার চুল কেটে দেওয়া হয়। তাদের একজন স্থানীয় একটি স্কুলে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ে। তার বাবা একটি কারখানায় নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কাজ করেন।

এ বিষয়ে খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সন্তোষ কুমার চাকমা বাংলানিউজকে বলেন, ঘটনায় জড়িত তিনজনই মনসুরাবাদ পুলিশ লাইনের সদস্য। সেখানে সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা ও আমাদের থানা পুলিশ ডিউটির সময় তদারকি করে থাকে।

অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) শাহাদত হুসেন রাসেল জানান, ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠিত হয়েছে। এ ছাড়া কমিশনার স্যারের নির্দেশে আজ দায়িত্ব থেকে তিনজনকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ

Recent Comments

No comments to show.